ঢাকা, ২০ জুন ২০২১, রবিবার

২৫১ রানে অলআউট টাইগাররা

Facebook
WhatsApp
Twitter
Google+
Pinterest
বাংলাদেশ

স্বাগতিকদের ৪৯৩ রানের জবাবে, ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশের শুরুটাও হয় উড়ন্ত। ওপেনিংয়ে ৯৮ রানের পার্টনারশিপ আসে তামিম-সাইফের ব্যাটে। তবে এই ম্যাচেও হতাশ হয়ে ফিরেছেন ৯২ রানে। সেঞ্চুরি মিসের আক্ষেপ নিয়েই ফিরে যান তিনি।

ক্যান্ডিতে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে স্বাগতিক শ্রীলংকার ৪৯৩/৭ রানের পাহাড় ডিঙ্গাতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে ২৫১ রানে অলআউট বাংলাদেশ দল।

দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশকে পাহাড়সম লক্ষ্য দেয়াই এখন মূল উদ্দেশ্য স্বাগতিকদের। স্বাগতিকদের ৪৯৩ রানের জবাবে, ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশের শুরুটাও হয় উড়ন্ত। ওপেনিংয়ে ৯৮ রানের পার্টনারশিপ আসে তামিম-সাইফের ব্যাটে। তবে এই ম্যাচেও হতাশ হয়ে ফিরেছেন ৯২ রানে।

সেঞ্চুরি মিসের আক্ষেপ নিয়েই ফিরে যান তিনি। তবে আগের ম্যাচের ব্যর্থতা ভুলে খেলেছিলেন বেশকিছু দারুণ শট খেলছিলেন সাইফ। তবে ব্যক্তিগত ২৫ রানে ধৈর্যচ্যুতি ঘটে সাইফের। পরের ওভারে একই পথ ধরেন নাজমুল হোসেন শান্ত। রানের খাতা খোলার আগেই লাঞ্চবিরতির ঠিক আগেই সাজঘরে ফেরেন শান্ত।

মেন্ডিসের বলে থিরিমান্নেকে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনি। তবে হঠাৎই ছন্দপতন ঘটে টাইগার শিবিরে। চা বিরতির আগে প্রবীন জয়াবিক্রমার বলে এলবিডব্লিউ হয়ে মুশফিকুর রহিম ফিরে যান ৪০ রান করে। বিরতিতে থেকে ফিরে সেই ধাক্কা সামাল দিতে পারেননি অধিনায়ক মুমিনুল হক-লিটন দাসরা।

৬৫ তম ওভারের পঞ্চম বলেই রমেশ মেন্ডিসের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে যান মুমিনুল হক। হাফ সেঞ্চুরি থেকে ১ রান দূরে থাকতেই বিদায় নেন তিনি। ফলে ফলোঅনের শঙ্কায় পড়ে বাংলাদেশ।

শ্রীলঙ্কার অভিষিক্ত প্রবীন জয়াবিক্রমার ঘূর্ণিতেই খেই হারিয়ে ফেলে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। ৩২ ওভার বল করে ৯২ রান দিয়ে মোট ৬টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন সুরাঙ্গা লাকমাল এবং রমেশ মেন্ডিস।

এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে আবারও ব্যাট করতে নেমেছে স্বাগতিকরা। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তাদের সংগ্রহ ২ উইকেটে ১৫ রান। উইকেট দুটি নিয়েছেন মিরাজ এবং তাইজুল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *