ঢাকা, ১৪ এপ্রিল ২০২১, বুধবার

সেমিফাইনালের পথে এগিয়ে গেল রিয়াল

Facebook
WhatsApp
Twitter
Google+
Pinterest
ক্লাব

রিয়াল দুর্দান্ত সব আক্রমণে ব্যস্ত রাখে অল রেডসদের রক্ষণকে। ম্যাচের ৩৬ মিনিটে লিভারপুল রক্ষণভাগের খেলোয়াড় ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার আর্নল্ড বল বিপদমুক্ত করতে দুর্বল হেডে বল গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকারের উদ্দেশে বাঁড়াতে যান।

ভিনিসিয়াস জুনিয়রের জোড়া গোল আর মার্কো অ্যাসেন্সিওর এক গোলে লিভারপুলকে হারিয়ে দিল রিয়াল মাদ্রিদ। এই জয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালের পথে অনেকটা এগিয়ে গেল জিনেদিন জিদানের দল।

মঙ্গলবার রাতে ঘরের মাঠ আলফ্রেদো দি স্তেফানোয় কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে ৩-১ গোলে জিতেছে প্রতিযোগিতার রেকর্ড ১৩ বারের চ্যাম্পিয়নরা।

লিভারপুলের হয়ে একমাত্র গোলটি করেছেন মোহামেদ সালাহ। করোনা ও ইনজুরির কারণে দলের বেশ কয়েকজন সিনিয়র খেলোয়াড় ছিটকে গেলেও গোটা ম্যাচ জুড়ে ছিল স্বাগতিকদের আধিপত্য। বল দখলের লড়াইয়ে কিছুটা পিছিয়ে থাকলেও আক্রমণভাগে রিয়াল মাদ্রিদ এদিন ছিল অপ্রতিরোধ্য।

তবে, প্রতিপক্ষের মাঠে মহামূল্যবান একটি অ্যাওয়ে গোল পাওয়ায় ফিরতি লেগে ইয়ুর্গেন ক্লপের দলের ঘুরে দাঁড়ানোর সম্ভাবনা টিকে আছে ভালোমতোই। মূল দুই সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার সার্জিও রামোস ও রাফায়েল ভারানেকে ছাড়া খেলতে নামা রিয়ালের রক্ষণভাগকে প্রথমার্ধে কোনো পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি লিভারপুল।

উল্টো তাদের ভঙ্গুর রক্ষণে শুরু থেকেই চাপ বাড়ায় স্বাগতিকরা। আক্রমণের পর আক্রমণে ছিন্নভিন্ন অল রেডসদের রক্ষণ। আর এদিন লস ব্ল্যাঙ্কোসদের আক্রমণকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তরুণ ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ভিনিসিয়াস। ২৭তম মিনিটে টনি ক্রুসের পাস থেকে দুর্দান্ত ফিনিশিংয়ে বল জালে জড়িয়ে দলকে এগিয়ে নেন ভিনিসিয়াস।

তবে এই গোলের মূল কারিগর ছিলেন জার্মান স্নাইপার খ্যাত রিয়ালের মিডফিল্ড মায়েস্ত্রো টনি ক্রুস। মাঝমাঠে বল পেয়ে লিভারপুলের রক্ষণের দেওয়ালের ওপর দিয়ে ভিনিসিয়াসের উদ্দেশে লম্বা করে বাড়ান তিনি। এরপর বুক দিয়ে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ঠান্ডা মাথায় জালে জড়িয়ে দেন ব্রাজিলিয়ান এই তরুণ।

এই গোলের মাধ্যমে চ্যাম্পিয়নস লিগের নকআউট পর্বে রিয়াল মাদ্রিদের দ্বিতীয় কমবয়সী খেলোয়াড় হিসেবে গোল করলেন ভিনিসিয়াস (২০ বছর ২৬৮ দিন)। তার চেয়ে কম বয়সে নকআউট পর্বে গোল করেছেন রিয়াল কিংবদন্তি রাউল গঞ্জালেস ২০ বছর ২৫৩ দিন।

এগিয়ে যাওয়ার পর রিয়াল দুর্দান্ত সব আক্রমণে ব্যস্ত রাখে অল রেডসদের রক্ষণকে। ম্যাচের ৩৬ মিনিটে লিভারপুল রক্ষণভাগের খেলোয়াড় ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার আর্নল্ড বল বিপদমুক্ত করতে দুর্বল হেডে বল গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকারের উদ্দেশে বাঁড়াতে যান। কিন্তু তার আগে অ্যাসেন্সিও বল কেড়ে নেন, এরপর অ্যালিসনকে পেছনে ফেলে বল জালে জড়ান স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড।

বিরতির পর ফিরেই নিজেদের খুঁজে পেতে শুরু করে অল রেডসরা। রিয়ালকে গুছিয়ে উঠতে সময় না দিয়েই ৫১তম মিনিটে মিশরীয় ফরোয়ার্ড সালাহ দুর্দান্ত এক গোল করে লিভারপুলের ফেরার বার্তা দেন।

তবে লিভারপুলের স্বস্তি দীর্ঘায়িত হয়নি। ৬৫তম মিনিটের মাথায় লিভারপুলের ডি-বক্সের ভেতর বল পেয়ে করিম বেনজেমা বল বাড়িয়ে দেন লুকা মদ্রিচের দিকে। মদ্রিচ দেখে নেন ভিনিসিয়াস আছেন গোল করার মতো পজিশনে আর সঙ্গে সঙ্গে তার উদ্দেশেই বল বাড়িয়ে দেন। আর ঠান্ডা মাথায় ভিনিসিয়াস বল জালে জড়িয়ে ৩-১ ব্যবধান করে দেন।

এরপর দুই দলই দুর্দান্ত কিছু আক্রমণ করলেও শেষ পর্যন্ত আর গোলের দেখা পায়নি দুই দলের কেউই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *