ঢাকা, ১১ মে ২০২১, মঙ্গলবার

বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজ আইনের খসড়া অনুমোদন

Facebook
WhatsApp
Twitter
Google+
Pinterest
মেডিকেল

আইন অনুযায়ী প্রত্যেকটি মেডিক্যাল বা ডেন্টাল কলেজে কমপক্ষে ৫০ জন শিক্ষার্থী থাকতে হবে। মেট্রোপলিটন এলাকায় মেডিক্যাল কলেজের নামে দুই একর, ডেন্টাল কলেজের নামে এক একর এবং অন্যান্য এলাকায় মেডিক্যাল কলেজের জন্য চার একর ও ডেন্টাল কলেজের জন্য দুই একর জমি থাকতে হবে।

ঢাকা : বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও ডেন্টাল কলেজ আইন, ২০২১ এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ৩ মে সোমবার ভার্চ্যুয়াল মন্ত্রিসভা বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ২০২০ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়।

আইন অনুযায়ী প্রত্যেকটি মেডিক্যাল বা ডেন্টাল কলেজে কমপক্ষে ৫০ জন শিক্ষার্থী থাকতে হবে। মেট্রোপলিটন এলাকায় মেডিক্যাল কলেজের নামে দুই একর, ডেন্টাল কলেজের নামে এক একর এবং অন্যান্য এলাকায় মেডিক্যাল কলেজের জন্য চার একর ও ডেন্টাল কলেজের জন্য দুই একর জমি থাকতে হবে।

মেডিক্যাল কলেজের নামে তফসিলি ব্যাংকে তিন কোটি টাকা এবং ডেন্টাল কলেজের নামে দুই কোটি টাকা সংরক্ষিত তহবিল হিসেবে জমা থাকতে হবে বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

তিনি জানান, মেডিক্যাল কলেজের একাডেমিক কার্যক্রমের জন্য কমপেক্ষ এক লাখ বর্গফুট, হাসপাতাল পরিচালনার জন্য আরও এক লাখ বর্গফুট কন্সট্রাকশন সুবিধা থাকতে হবে। আর ডেন্টাল হাসপাতালের জন্য ৫০ হাজার বর্গফুট থাকতে হবে।

আনোয়ারুল ইসলাম জানান, বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও ডেন্টাল কলেজ পরিদর্শনের ব্যবস্থা থাকবে। একাডেমিক অনুমোদনপ্রাপ্ত প্রত্যেক বেসরকারি মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কলেজকে কোনো একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্ট থাকতে হবে।

শিক্ষার্থী ও শিক্ষকের অনুপাত হতে হবে ১০:১। অর্থাৎ, প্রতি দশ শিক্ষার্থীর জন্য একজন করে শিক্ষক থাকতে হবে। শিক্ষার্থীদের ফি সরকার নির্ধারণ করে দেবে। মেডিক্যাল বর্জ্য সান্টিফিকওয়েতে ডিসপোজাল করতে হবে। কেউ আইন ভঙ্গ করলে দুই বছরের কারাদণ্ড, ১০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *