ঢাকা, ১০ মে ২০২১, সোমবার

খালেদা জিয়ার অবস্থা স্থিতিশীল : মির্জা ফখরুল

Facebook
WhatsApp
Twitter
Google+
Pinterest
বিএনপি নেতা

সরকারের ফ্যাসিস্ট আচরণ সবচেয়ে বেশি আঘাত করেছে শ্রমিক এবং যারা নিজেদের স্বাধীনতার জন্য আন্দোলন করছেন, তাদের। এক্ষেত্রে সম্প্রতি বাঁশখালীতে গুলিতে নিহত শ্রমিকদের কথা উল্লেখ করেন তিনি। করোনা ভাইরাসে শ্রমিকদের জন্য সরকারি প্রণোদনা বরাদ্দ রাখা হয়নি।

ঢাকা : বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, খালেদা জিয়ার অবস্থা এখন স্থিতিশীল আছে। রাজধানীর একটি হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে চিকিৎসা নিচ্ছেন খালেদা জিয়া। দুই দফা করোনা পরীক্ষায় তার পজিটিভ ধরা পড়ে।

মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক ভার্চুয়াল সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি মহাসচিব এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, গতকাল তার শ্বাসকষ্ট হওয়ায় সিসিইউতে নেয়া হয়েছে। এখনো সেখানে আছেন। তবে এখন তার অবস্থা স্থিতিশীল। তিনি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন বলে তার চিকিৎসকরা বলেছেন।

তিনি বলেন, সরকারের ফ্যাসিস্ট আচরণ সবচেয়ে বেশি আঘাত করেছে শ্রমিক এবং যারা নিজেদের স্বাধীনতার জন্য আন্দোলন করছেন, তাদের। এক্ষেত্রে সম্প্রতি বাঁশখালীতে গুলিতে নিহত শ্রমিকদের কথা উল্লেখ করেন তিনি। করোনা ভাইরাসে শ্রমিকদের জন্য সরকারি প্রণোদনা বরাদ্দ রাখা হয়নি।

মির্জা ফখরুল বলেন, এক্ষেত্রে মালিক, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা, আওয়ামী লীগের নেতারা সবচেয়ে বেশি সুবিধা পাচ্ছেন। দিনমজুর, ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের সাহায্য করা হচ্ছে না। মহাসচিব দাবি করেন, সরকারি চাকরিতে যারা বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন, তাদের বাদ দেয়া হয়েছে অথবা অন্যভাবে হয়রানি করা হচ্ছে।

মির্জা ফখরুল অভিযোগ করে বলেন, সরকার লকডাউন দিয়ে নিজেদের স্বার্থ হাসিলে ক্র্যাকডাউন চালাচ্ছে। হেফাজতে ইসলাম ও ছাত্রনেতাদের গ্রেপ্তার করতে এই লকডাউন। পুরো জাতি জিম্মি হয়ে গেছে। এখানে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে তরুণ ও শ্রমিকদের।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, তারেক রহমান যাতে দেশে ফিরতে পারেন, দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে যাতে মামলা তুলে নেওয়া হয় এবং শ্রমিক শ্রেণির অধিকার যেন প্রতিষ্ঠিত হয়, সেজন্য দেশে আন্দোলন দরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *