বিএনপি মহাসচিব

ক্রীড়া ক্ষেত্রে কোকোর অবদান অনস্বীকার্য : ফখরুল 

কোকো ছিলেন একজন পুরোদস্তর ক্রীড়া সংগঠক। তিনি কখনও খেলার ভেতরে রাজনীতিকে অন্তর্ভূক্ত করেননি। বর্তমান সরকারের কর্তাব্যক্তিদের মদদেই তৎকালীন মইন উদ্দিন-ফখরুদ্দিন সরকার তাকে নির্মম নির্যাতন করে। তারই ফলশ্রুতিতে মানসিকভাবে তিনি বেশি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

ঢাকা : বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ক্রীড়া ক্ষেত্রে আরাফাত রহমান কোকোর অবদান অনস্বীকার্য। আল্লাহ তাকে বেহেশত দান করুক আমরা সেই দোয়া চাই।

২৬ জানুয়ারি মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নসরুল হামিদ মিলনায়তনে খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর ষষ্ঠ মৃত্যূবার্ষিকী উপলক্ষে সাবেক ক্রীড়াবিদ ও ক্রীড়া সংগঠক আয়োজিত আলোচনা সভায় ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, কোকো ছিলেন একজন পুরোদস্তর ক্রীড়া সংগঠক। তিনি কখনও খেলার ভেতরে রাজনীতিকে অন্তর্ভূক্ত করেননি। বর্তমান সরকারের কর্তাব্যক্তিদের মদদেই তৎকালীন মইন উদ্দিন-ফখরুদ্দিন সরকার তাকে নির্মম নির্যাতন করে। তারই ফলশ্রুতিতে মানসিকভাবে তিনি বেশি অসুস্থ হয়ে পড়েন। ফলে তার মৃত্যু হয়। যা কোনো স্বাভাবিক মৃত্যু নয়, এটা হত্যা।

মির্জা ফখরুল বলেন, আরাফাত রহমান কোকোর ক্রীড়া ক্ষেত্রে দূরদৃষ্টির কারণেই বাংলাদেশের ক্রিকেট আজ এ পর্যায়ে এসেছে। বর্তমান সরকার ক্রীড়া ক্ষেত্রে যে দুর্নীতির মহোৎসব করছে জাতীয়তাবাদী শক্তির উত্থানের মধ্যে দিয়ে তা একদিন নিশ্চয়ই দূর হবে।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে ও বিএনপির ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল হকের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ বিভাগ বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শরিফুল আলম, জেলা বিভাগীয় ক্রীড়া সংগঠন পরিষদের মহাসচিব মহিউদ্দিন বুলবুল, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সাবেক সহ-সভাপতি মনজুর হোসেন মালু, বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক কোচ সাজ্জাদ হোসেন সিদ্দিকী, বিসিবির সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, সুইমিং ফেডারেশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আমিনুল হক দেওয়ান প্রমুখ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on google
Share on whatsapp
Share on email
Share on facebook

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *