ঢাকা, ১৪ এপ্রিল ২০২১, বুধবার

ইইউ-যুক্তরাষ্ট্রের সাথে পরমাণু ইস্যুতে বৈঠকে বসবে না ইরান

Facebook
WhatsApp
Twitter
Google+
Pinterest
পতাকা

আমেরিকা ইরানের সাথে পারমাণবিক চুক্তি ত্যাগ করার পর থেকেই দেশ দুটিতে উত্তেজনা বেড়েছে। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানকে ২০১৫ সালের চুক্তি পুনর্বিবেচনা করতে বাধ্য করার জন্য অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞাগুলি চাপিয়ে দিয়েছিলেন, যা যৌথ বিস্তৃত পরিকল্পনা নামে পরিচিত।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে পারমাণবিক চুক্তিতে ফেরার বিষয়ে অনানুষ্ঠানিক বৈঠকের বিষয়ে অস্বীকার করেছে ইরান। বৈঠকের আগে ইরানের ওপর থেকে সকল প্রকার নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার দাবি জানিয়েছে দেশটি।

২৮ ফেব্রুয়ারি রোববার ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদে বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রস্তাবিত আলোচনার জন্য এটি উপযুক্ত সময় নয়।

এর জবাবে যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, পরমাণু ইস্যুতে বৈঠকের বিষয়ে ইরানের অস্বীকার হতাশ করেছে। তবে তারা এই ইস্যুতে অর্থবহ কূটনৈতিক আলোচনা চালিয়ে যেতে প্রস্তুত রয়েছে।

২০১৮ সালে আমেরিকা ইরানের সাথে পারমাণবিক চুক্তি ত্যাগ করার পর থেকেই দেশ দুটিতে উত্তেজনা বেড়েছে। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানকে ২০১৫ সালের চুক্তি পুনর্বিবেচনা করতে বাধ্য করার জন্য অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞাগুলি চাপিয়ে দিয়েছিলেন, যা যৌথ বিস্তৃত পরিকল্পনা নামে পরিচিত।

তবে তা ইরান প্রত্যাখ্যান করেছিল। যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন এই চুক্তিতে পুনরায় যোগদানের অভিপ্রায় প্রকাশ করেছে। তবে ওয়াশিংটন জোর দিয়েছিল তেহরানকে প্রথমে চুক্তির বিষয়ে পুরোপুরি সম্মতিতে দিতে হবে, ইরান বলছে আগে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে।

প্রসঙ্গত পারমাণবিক কর্মসূচি হ্রাস করার বিনিময়ে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের শর্তে ২০১৫ সালে নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী ৫ সদস্য ও জার্মানির সঙ্গে ইরান জয়েন্ট কম্প্রিহেনসিভ প্ল্যান অব অ্যাকশন নামে চুক্তিতে সই করেছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *